পৃথিবীর সব মানুষের শরীরে সংক্রমণ ঘটানোর সক্ষমতা নেই করোনা ভাইরাসের। সম্প্রতি এক নতুন গবেষণা বলছে,, কিছু মানুষের শরীরে এমন ধরনের ‘T cell’ রয়েছে,যার কারণে তারা কখনোও আক্রান্ত হবেন না। সেল জার্নালে প্রকাশিত ওই গবেষণায় বলা হয়, বিভিন্ন ধারার ভাইরাস দ্বারা সংক্রমিত হওয়ার কারণে অনেক মানুষের শরীরে ভাইরাস বিরোধী ‘T cell’ তৈরি হয়। এই সেল করোনা রুখে দিতে সক্ষম। বিজ্ঞানভিত্তিক ওয়েবসাইট সাইন্স অ্যালার্ট বলছে, চিকিৎসা বিজ্ঞানে এই সক্ষমতাকে বলা হয় ‘ক্রস-রিয়েক্টিভিটি’ ।

গবেষণায় মোট ৪০ জনের রক্তের নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এদের মধ্যে ২০ জন করোনায় আক্রান্ত হওয়ার পর সেরে উঠেছেন। বাকি ২০ জনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছিল ২০১৫ থেকে ২০১৮ সালের মধ্যে,যারা অন্য কোন ভাইরাস দ্বারা সংক্রমিত হয়েছিলেন। সেই ২০ জন আক্রান্ত হয়নি।

বিজ্ঞানীরা আরো দাবি করছেন,যাদের শরীরে মৃদু করোনা ভাইরাসের উপসর্গ ছিল, তাদের শরীরেও এমন কিছু ‘T cell’ এবং অ্যান্টিবডি তৈরি হতে পারে,যেগুলো ভবিষ্যতে সংক্রমণ থেকে রক্ষা করবে। গবেষণায় দেখা গেছে, করোনা থেকে সেরে ওঠা ২০ জনের শরীরেই শ্বেত কণিকা এবং অ্যান্টিবডির উপস্থিতি রয়েছে। আর ২০১৫ থেকে ২০১৮ সালে যেসব নমুনা নেওয়া ছিল, সেগুলোর ৫০ শতাংশের মধ্যেও “সিডি৪+” নামের ‘টি সেল’ পাওয়া গেছে। গবেষণায় সহকারী আলেসান্দ্রো সেটে বলেছেন,’টি সেল’ খুব দ্রুত শক্তিশালী রোগ প্রতিরোধ প্রতিক্রিয়া দেখাতে পারে। ভাইরাস শরীরে ছড়িয়ে পড়ার চেষ্টা করলেও ‘টি সেলের’ রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা এটিকে প্রতিহত করতে সক্ষম হয়।

অন্য একটি গবেষণায় উঠে এসেছে,যারা নিয়মিত মধ্যরাতে ঘুম থেকে উঠে প্রার্থনা করেন (তাহাজ্জুদ নামাজ আদায় করেন), তাদের শরীরে করোনা ভাইরাস সংক্রমণের সম্ভাবনা খুব কম, কেননা ঐ সময়ে ঘুম থেকে উঠা স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী, সারাদিনের কাজের উপর প্রভাব ফেলে আর রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধিতেও সহায়ক!!

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে